মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

আপনার জিজ্ঞাসা

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

 

পরিদপ্তর সংক্রান্ত

 

১। সরকারি আবাসন পরিদপ্তর কোন বিধি/আইনের উপর ভিত্তি করে সেবা প্রদান করে থাকে?

সরকারি আবাসন পরিদপ্তর “বাংলাদেশ বরাদ্দ বিধিমালা ১৯৮২” অনুসরণ করে সেবা প্রদান করে থাকে। বিধিটি জানতে । এ সংক্রান্ত বিভিন্ন গেজেট/সরকারি আদেশ জানতে

 

২। সরকারি আবাসন পরিদপ্তর কী কী সেবা প্রদান করে থাকে?

ঢাকা এবং চট্টগ্রামে কর্মরত সরকারি কর্মচারিগণের অন্যতম প্রধান সমস্যা আবাসন। সরকারি আবাসন পরিদপ্তর ঢাকায় ও চট্টগ্রামে কর্মরত সরকারি কর্মচারীগণের আবাসনের ব্যবস্থা করে থাকে। এছাড়া কর্মচারিগণের অবসরগ্রহণের সময় প্রয়োজনীয় না-দাবি সনদ প্রদান সেবাও সরকারি আবাসন পরিদপ্তর করে থাকে। সরকারি আবাসন পরিদপ্তর কর্তৃক প্রদেয় সেবাসমূহের মধ্যে রয়েছে-

  • সরকারি বাসা-বাড়ি বরাদ্দ প্রদান।
  • দোকান বরাদ্দ ও ভাড়া আদায়।
  • গ্যারেজ বরাদ্দ প্রদান।
  • অফিস স্থান বরাদ্দ প্রদান।
  • সাময়িক ও চূড়ান্ত না-দাবি সনদ প্রদান।
  • ঢাকায় কর্মরত যেসকল কর্মকর্তা সরকারি বাসায় বসবাস করেননি তাদের অনুকূলে না-দাবি সনদ প্রদান।

 

৩। বর্তমানে সরকারি আবাসন পরিদপ্তরের আওতাধীন বাসার সংখ্যা কত?

সরকারি আবাসন পরিদপ্তরের বাসা সংক্রান্ত পরিসংখ্যান জানতে

 

বাসা বরাদ্দ সংক্রান্ত

 

১। বাসা বরাদ্দপ্রাপ্তির জন্য একজন সরকারি কর্মচারীর কী কী যোগ্যতা থাকা প্রয়োজন?

এ সংক্রান্ত তথ্যের জন্য

 

২। কীভাবে বাসা বরাদ্দ পেতে পারি?

বাসা বরাদ্দপ্রাপ্তির জন্য নির্ধারিত ফর্ম পূরণ পূর্বক উক্ত ফর্ম আবেদন পত্রের সাথে সংযুক্ত করে আবেদন করতে হবে। ফর্ম প্রাপ্তির জন্য

 

৩। আবেদনের ক্ষেত্রে কোন কোন বিষয়ের প্রতি লক্ষ্য রাখতে হবে?

বাসা বরাদ্দের আবেদনের ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত বিষয়গুলোর উপর দৃষ্টি রাখতে হবেঃ

  • বাসা বরাদ্দের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আবেদন অগ্রায়ন করতে হবে।
  • আবেদনপত্রে অবশ্যই প্রার্থিত বাসার শ্রেণি এবং এলাকা উল্লেখ করতে হবে।

 

৪। আবেদনের সাথে কী কী কাগজপত্র দাখিল করতে হবে?

  • চাহিত এলাকা ও বাসার শ্রেণি উল্লেখ পূর্বক বরাদ্দের আবেদন পত্র
  • বরাদ্দের জন্য পূরণকৃত
  • সংশ্লিষ্ট অফিস কর্তৃক সত্যায়নকৃত বেতন বিবরণী
  • প্রতিলিপি

উল্লেখ্য,  বরাদ্দের আবেদন যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে অগ্রায়ন করতে হবে।

 

৫। অনলাইনে আবেদন করা যায় কি?

ইতোমধ্যে অনলাইনে বাসা বরাদ্দের আবেদন গ্রহণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে এখনও এটি পরীক্ষামূলক পর্যায়ে আছে। অনলাইনে বাসা বরাদ্দের আবেদনের জন্য প্রধান পাতার সেবা বাতায়ন মেনুতে যান /

 

৬। আবেদনপত্রটি গৃহীত হয়েছে কি-না কীভাবে জানতে পারব?

আপনার আবেদনটি গৃহীত হয়েছে কি-না তা জানতে । (দ্রুত কার্যকরী করা হবে)

 

না-দাবি সনদ সংক্রান্ত

 

১। না-দাবি সনদপত্র কী?

ঢাকা শহরে কর্মরত সরকারি বাসায় বসবাসকারী কর্মচারীগণের অনুকূলে বাড়ি ভাড়া ভাতা, বিদ্যুৎ বিল, গ্যাস বিল, পানি ও পয়ঃ কর ইত্যাদি বাবদ কোনো নির্দিষ্ট সময় কিংবা সমগ্র কর্মজীবনে সরকারের নিকট কোনো পাওনাদি নেই মর্মে যে সনদপত্র প্রদান করা হয় তাই না-দাবি সনদ পত্র।

দুই ধরণের না-দাবি সনদপত্র প্রদান করা হয় – সাময়িক না-দাবি সনদপত্র ও চূড়ান্ত না-দাবি সনদপত্র।

 

২। না-দাবি সনদপত্র কেন প্রয়োজন?

না-দাবি সনদের মাধ্যমে নিশ্চিত হয় যে, গ্রহীতার নিকট বাসা ভাড়া ভাতা, বিদ্যুৎ বিল, গ্যাস বিল, পানি ও পয়ঃ কর ইত্যাদি বাবদ সরকারের কোনো পাওনা নেই। সরকারি কর্মচারীর অবসরগ্রহণান্তে পেনশন গ্রহণের ক্ষেত্রে না-দাবি সনদপত্র প্রদান করতে হয়। অন্যথায় পেনশন গ্রহীতা ১০০ ভাগ পেনশন উত্তোলন থেকে বঞ্চিত হবেন।

 

৩। না-দাবি সনদপত্র কাদের জন্য প্রয়োজন?

সরকারি বাসায় বসবাসকারী সকল সরকারি কর্মচারী

ঢাকায় কর্মরত/কর্মরত ছিলেন এমন সকল সরকারি কর্মচারী

 

৪। কীভাবে না-দাবি সনদপত্র পেতে পারি?

  • না-দাবি সনদপত্র প্রাপ্তির জন্য নির্ধারিত ফর্ম পূরণ পূর্বক আবেদন দাখিল করতে হবে।
  • সেবাগ্রহিতা সাময়িক নাকি চূড়ান্ত না-দাবি সনদ গ্রহণ করবেন তা আবেদনে উল্লেখ করতে হবে।
  • সাময়িক না-দাবি সনদ গ্রহণের ক্ষেত্রে প্রার্থিত না-দাবি গ্রহণের সময় স্পষ্ট করে উল্লেখ করতে হবে।
  • ফর্ম প্রাপ্তির জন্য। ( দ্রষ্টব্য )

৫। না-দাবি সনদপত্র প্রাপ্তির আবেদনের সাথে কী কী কাগজপত্র দাখিল করতে হবে?

প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদির তালিকা দেখতে

 

৬। আবেদনের কতদিনের মধ্যে না-দাবি সনদ পেতে পারি?

একটি ত্রুটিহীন আবেদনের ক্ষেত্রে ৩ কার্যদিবসের মধ্যেই না-দাবি সনদ পাওয়া যায়।

 

৭। অনলাইনে আবেদন করা যায় কি?

ইতোমধ্যে অনলাইনে না-দাবি সনদ প্রদানের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে এখনও এটি পরীক্ষামূলক পর্যায়ে আছে। অনলাইনে না-দাবি সনদপ্রাপ্তির আবেদনের জন্য প্রধান পাতার সেবা বাতায়ন মেনুতে যান /

 

৮। আবেদনপত্রটি গৃহীত হয়েছে কি-না কীভাবে জানতে পারব?

আপনার আবেদনটি গৃহীত হয়েছে কি-না তা জানতে । (দ্রুত কার্যকরী করা হবে)

 

বিবিধ বিষয়ক

 

১। আবেদনের ক্ষেত্রে সশরীরে উপস্থিত হওয়ার প্রয়োজনীয়তা আছে কি?

কোনো প্রয়োজন নেই।

 

২। সেবা গ্রহণে ব্যর্থ হলে কিংবা কোনো হয়রানির স্বীকার হলে কী করবো?

  • প্রাথমিকভাবে মেইলে আপনার অভিযোগ প্রদান করুন। মেইলে দ্রুত জবাব প্রদান করা হয়। অভিযোগ প্রদানের জন্য

 

  • নিম্নোক্ত নাম্বারে ফোন করে আপনার হয়রানির বিষয়টি জানাতে পারেন।

+88029549171

 

  • সরকারি আবাসন পরিদপ্তরের-এর মেসেজ বাটনে ক্লিক করে আপনার হয়রানির বিষয়টি জানাতে পারেন।
  • উপর্যুক্ত পদ্ধতিতে কোনো সমাধান না পেলে সরাসরি নিম্নোক্ত ঠিকানায় যোগাযোগ করুন।

   
নাম মোঃ এমদাদুল হক
পদবি পরিচালক (যুগ্ম-সচিব)
অফিস ভবন নং-৫, কক্ষ নং-৯, বাংলাদেশ সচিবালয়, ঢাকা। ইন্টারকম-১০২ (পি.এ)
ই-মেইল haque.emdadul@yahoo.com
জীবন বৃত্তান্ত  
Download Vcard
ফোন (অফিস) ৯৫৪৫০৩৭
ফোন (বাসা)  
মোবাইল ০১৫৫২৩১৫২৪৬
ফ্যাক্স ০২-৯৫১৪২৩৩

   
নাম মোঃ শহিদুল ইসলাম ভূঞা
পদবি অতিরিক্ত পরিচালক (উপ সচিব)
অফিস ভবন নং-৫, কক্ষ নং-৬, বাংলাদেশ সচিবালয়, ঢাকা। ইন্টারকম-১২০
ই-মেইল shohid_206684@yahoo.com
জীবন বৃত্তান্ত  
Download Vcard
ফোন (অফিস) ৯৫৪৫৮৭১
ফোন (বাসা)  
মোবাইল ০১৭১১২৩১২৩৪
ফ্যাক্স  

 

৩। বরাদ্দ এবং না-দাবি সনদপত্র প্রাপ্তির ক্ষেত্রে কোনো ফি প্রদান করতে হবে কি?

সরকারি আবাসন পরিদপ্তরের সেবা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে কোনো ফি প্রদান করতে হয় না।

 

এ সংক্রান্ত আরও তথ্যের জন্য


Share with :